Templates by BIGtheme NET

থানায় ডায়েরির পরদিনই ধর্ষিত নারী, পুলিশের বিরুদ্ধে অবহেলার অভিযোগ

বিএনএস টাইমস, ঢাকা: বনানীর ২ শিক্ষার্থী ধর্ষণের ঘটনার পর আবারো গণমাধ্যমে আলোচনায় উঠে এসেছে কড়াইল বস্তির এক গার্মেন্টস শ্রমিক ধর্ষণের খবর। বখাটের উত্যক্ত করার প্রতিবাদ হিসেবে থানায় সাধারণ ডায়েরি করার পরদিনই ধর্ষিত হন ওই নারী। এ ঘটনায় এখনো পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করেনি পুলিশ। ধর্ষিতার অভিযোগ, ধর্ষকরা এলাকার প্রভাবশালী হওয়ায় পুলিশ মামলাকে গুরুত্ব দিয়ে দেখছে না।

‘আমার গলায় ওড়না প্যাচাইছে। তারপর অনেক রক্ত পড়তাছে গলার থেকে। রক্ত পড়ার পরে আমি বলতাছি.. আমি কোন কথা তো বলতে পারতাছি না, খুব ছটফট করতাছি ব্যথার যন্ত্রণায়। তাও রক্ত পড়তেই আছে। ওরা যতো চাপ দেয় ততো রক্ত পড়ে..’

দুই মাস আগে ঘটে যাওয়া বিভীষিকাময় মুহূর্তগুলোর কথা বলছিলেন ধর্ষণের শিকার এক পোশাক শ্রমিক। বলতে গিয়ে শিউরে উঠছিলেন বারবার। ধর্ষিত হয়ে ৯ দিন হাসপাতালে ভর্তি থাকার পর নিজের মেডিকেল রিপোর্ট হাতে ছুটে গেছেন থানায় কিন্তু মামলা নেয়নি পুলিশ। উল্টো ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বের করে দেওয়া হয় তাকে।

ভুক্তভোগী জানান, ‘উনে যাওয়ার পর থেকে খালি ঘাড়ে ধাক্কা দিয়ে বাইর করে দেয় আমাকে। এছাড়া কোন শব্দ নাই যে.. যেমন, আসছো, দেখতাছি বা এমন কিছুই না, খালি ঘাড় ধাক্কা দিয়ে বাইর করে দিবে। পরে আমাকে একটা মহিলা ঠিকই সত্য সত্য মানে, ঘাড়ে ধইরা বলতাছে, বাইর হ। পরে বাইর হওয়ার পরে দারোয়ান আমাকে মেনগেট থেকেই বাইর করে দেছে।’

কিন্তু হাল ছাড়েননি তিনি। টানা ২ মাস ছোটাছুটির পর অবশেষে মামলা নিয়েছে পুলিশ। তবে এখনও ধর্ষকদের দাপটে নিজের বাড়িতে থাকতে পারছেন না সেই তরুণী ও তার পরিবার। মানবাধিকার কমিশনের কাছে সাহায্য চেয়েও খালি হাতে ফিরতে হয়েছে ধর্ষিত এই নারীকে।

এ বিষয়ে পুলিশের সঙ্গে কথা বলতে চাইলে বারবার ফোন করেও পাওয়া যায়নি বনানী থানার ওসি বা তদন্ত কর্মকর্তা কাউকেই।

ধর্ষণের ঘটনার পর ধর্ষিতের স্বামীও অস্বীকৃতি জানিয়েছে তাকে ঘরে তুলতে। অসহায় এই নারী এখন চোখের জলে শুধু চান দোষীদের শাস্তি হোক।

ăn dặm kiểu NhậtResponsive WordPress Themenhà cấp 4 nông thônthời trang trẻ emgiày cao gótshop giày nữdownload wordpress pluginsmẫu biệt thự đẹpepichouseáo sơ mi nữhouse beautiful